Image Not Found!
ঢাকা   ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

  দেশজুড়ে ওএমএস সুবিধায় সাড়া,স্বল্পমূল্যে চাল-আটা পেয়ে খুশি কার্ডধারীরা (2)        দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি ও বাজার স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার-ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার শফিকুর রেজা বিশ্বাস (94)        সুইস রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য ভুল ছিলো,অন্যরকম জয় পেলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন (3)        তারাকান্দায় বায়তুল আমান জামে মসজিদ ও নূরুল উলুম কওমী মাদ্রাসার কমিটি গঠিত (89)        আগামী মাসে সব স্বাভাবিক হবে-পরিকল্পনামন্ত্রী (2)        শিক্ষক বাতায়নে দেশ সেরা অনলাইন পারফর্মার রেহেনা আক্তার ঝর্ণা (94)        ময়মনসিংহে নারীদের জন্য বিশেষ আয়োজন ‘নিহার লাভলী টাইম উইথ তানজিন তিশা’ (94)        বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণ করাই আমার লক্ষ্য-প্রধানমন্ত্রী (3)        তারাকান্দায় ভূমিহীনদের জন্য তৈরী প্রধানমন্ত্রীর ২৬ হাজার ২ শত ২৯ টি গৃহের উদ্ভোধনী অনুষ্ঠান পালিত (94)        বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর (2)      
কোন চিঠিই ইস্যু করেনি মন্ত্রনালয়-শ.ম রেজাউল করিম(মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী)

করোনা আক্রান্ত সচিবের মায়ের চিকিৎসায় উপসচিবসহ ২৪ কর্মকর্তা-কর্মচারী

মোঃফজলে এলাহি ঢালীঃ

করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদের মা জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের করোনা ইউনিটে ভর্তি হয়েছেন। আর তাঁর মায়ের চিকিৎসার দেখাশুনা করা ও সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন এক উপসচিবসহ ২৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী।তাদের লিখিত নির্দেশনা দিয়ে তিন দিনের জন্য চার শিফটে দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। যাদের ২৪ ঘণ্টাই থাকতে হচ্ছে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে।

সোমবার (২৩ আগস্ট) বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ২৪ এর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে। তবে এমন কর্মকাণ্ডের কথা বেমালুম অস্বীকার করেছেন সচিবের একান্ত সচিব আজিজুল ইসলাম৷ তিনি বলেন, বিষয়টি কেউ উদ্দেশ্য মূলকভাবে করেছে। হাসপাতালে গেলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে।

নির্দেশনায় বলা হয়, এই ২৪ কর্মকর্তা-কর্মচারীর দায়িত্ব সমন্বয় করছেন, সচিবের একান্ত সচিব আজিজুল ইসলাম।  সচিবের মায়ের সার্বিক অবস্থা জানাতে হবে পিএসকে, চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ, টেস্ট করানোর ও তা দ্রুত সংগ্রহ করা এবং হোয়াটসঅ্যাপে সচিবের পিএসকে রিপোর্টের কপি পাঠাতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে থাকতে হবে রোগীর কাছাকাছি, রোগীর আত্মীয়দের কাছে জানান দিতে হবে কর্মকর্তাদের উপস্থিতি।

এসব তথ্যের সত্যতা মিললো জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের করোনা ইউনিটের সামনে। মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দু’জন স্বীকার করলেন, সচিবের মায়ের যেকোনো দরকারে ছয়ঘণ্টা সেখানে ডিউটি করতে হচ্ছে তাদের।

এ বিষয়ে একাধিকবার মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদকে ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

পরে এ বিষয়ে সচিবের একান্ত সচিব আজিজুল ইসলাম বলেন, আমাদের সচিব স্যারের মায়ের বয়স ৯৫।  তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েহাসপালে ভর্তি আছেন। সচিব স্যারও অসুস্থ, তিনি ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন এক সপ্তাহ আগে। এখনও পুরোপুরি সুস্থ হয়নি। তাই আমরা মানবতার খাতিরে অনেকেই সচিব স্যারের মাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছি। সে বিষয়টা জেনে সচিব স্যার আমাদের বলেছেন হাসপাতালে ভিড় করা যাবে না। যদি কেউ দেখতে যান তাহলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন সময়ে যেতে হবে। একসঙ্গে জটলা করে যাওয়া যাবে না।  

তিনি বলেন, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে এ ধরনের কোনো চিঠি ইস্যু করা হয়নি। যে চিঠিটি গণমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে সেখানে কোনো কর্মকর্তার স্বাক্ষর বা স্মারক নাম্বরও নাই। এরকম একটি ভুয়া চিঠির ওপর ভিত্তি করে গণমাধ্যম নিউজ করেছে।

কোন চিঠিই ইস্যু করেনি মন্ত্রনালয়-শ.ম রেজাউল করিম(মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী) 

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদের অসুস্থ মায়ের সেবায় হাসপাতালে ২৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দায়িত্ব দেওয়ার বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে কোনো চিঠি ইস্যু করা হয়নি বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী রেজাউল করিম বলেন, আমি ঢাকার বাইরে ছিলাম। গণমাধ্যম সূত্রে আমি জানতে পেরেছি আমাদের মন্ত্রণালয়ের সচিবের মায়ের চিকিৎসার জন্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আজ একনেক মিটিংয়ে আমি সচিবকে বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন আমি কাউকে এ ধরনের কোনো কাজ করতে বলিনি। তিনি নিজেও ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছিলেন, তারপরে তার ৯৫ বছর বয়সী মা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। তিনি অসুস্থ মাকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছেন। হয়তো মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কেউ কেউ হাসপাতলে সহানুভূতি জানাতে গেলে যেতে পারেন, সেখানে তিনি কাউকে কোনো দায়িত্ব দেননি। আমি মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নিয়ে দেখেছি মন্ত্রণালয়ের সচিবের মায়ের দেখভাল করার জন্য কাউকে কোনো দায়িত্ব দেওয়া হয়নি।

আজকের ময়মনসিংহ।